১০টি সেরা অনলাইন ইনকাম সাইট – ঘরে বসে অনলাইনে আয় করার ওয়েবসাইট

You are currently viewing ১০টি সেরা অনলাইন ইনকাম সাইট – ঘরে বসে অনলাইনে আয় করার ওয়েবসাইট

বর্তমানে অনলাইনে আয়ের ব্যাপারে কম বেশি সবাই পরিচিত। এখন ঘরে বসে যেকেউ চাইলে নিজের ইচ্ছাশক্তি এবং দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে অনলাইনে বিভিন্ন উপায়ে টাকা আয় করতে পারে।

অনলাইন থেকে টাকা আয় করার হাজারো রকমের উপায় রয়েছে। তাছাড়া, বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজ রয়েছে এবং দিন দিন অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং কাজের পরিমাণও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ক্ষেত্র বিশেষে এসব কাজের চাহিদা ভিন্নরকমের হয়ে থাকে এবং আয়ের পরিমাণও একেক কাজে ক্ষেত্রে একেক রকমের হয়ে থাকে।

বর্তমান সময়ে অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্য অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে। যেগুলোতে বিভিন্ন ক্যাটেগরির অনলাইন জব বা কাজ পাওয়া যায়। নিজস্ব দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে চাইলে যেকেউ সেইসকল ওয়েবসাইটগুলো থেকে টাকা ইনকাম করতে পারে।

যদিও অনলাইনে টাকা আয় করার অনেকগুলো জনপ্রিয় ওয়েবসাইট বা অনলাইন ইনকাম সাইট রয়েছে (Best Online Income Sites), কিন্তু এমন অনেক ওয়েবসাইটও রয়েছে যেগুলো অনেক সময় Scam বা Spammy হয়ে থাকে।

এই সকল ওয়েবসাইটগুলোতে অল্প কিছু পরিমাণ টাকা আয় করার সুযোগ থাকলেও, ঝামেলা থাকে প্রচুর এবং বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এগুলোতে সময় এবং পরিশ্রম দুটোই নষ্ট হয়।

যাইহোক, এই পোস্ট থেকে আপনারা জেনে নিতে পারবেন, অনলাইনে টাকা আয় করার সব থেকে সেরা কয়েকটি ওয়েবসাইট (Best Websites to Earn Money Online) বা অনলাইন ইনকাম সাইট সম্পর্কে। যে সাইটগুলো থেকে আপনি নিশ্চিন্তে বিভিন্ন উপায়ে বেশ ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Fiverr

বর্তমানে Fiverr সব চেয়ে জনপ্রিয় একটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট (Freelancing Website)। এখানে বিভিন্ন ক্যাটেগরির ফ্রিল্যান্স জব বা কাজ পাওয়া যায়। Fiverr এ নুন্যতম ৫ ডলার থেকে শুরু করে হাজার ডলার পর্যন্ত ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ পাওয়া যায়।

এখানে বেশ কিছু জনপ্রিয় ক্যাটেগরির ফ্রিল্যান্সিং কাজ পাওয়া যায়, যেমন, গ্রাফিক ডিজাইন থেকে শুরু করে, ওয়েবসাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট, ভিডিও এডিটিং, ডাটা এন্ট্রি, কন্টেন্ট রাইটিং, এসইও, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ইত্যাদি সহ আরো অনেক।

কোন একটি বিষয়ে নিজের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা অর্জন করে যেকেউ চাইলে এই ওয়েবসাইট থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে বেশ ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারে।

জনপ্রিয় এই মার্কেটপ্লেসটিতে আপনি আপনার দক্ষতা অনুসারে গিগ (Gig) তৈরি করতে পারবেন। এরপর সেই গিগের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের ক্লাইন্ট এর কাজগুলো করে দেয়ার মাধ্যমে আয় রোজগার করতে পারবেন।  

এই ফ্রিল্যান্স ওয়েবসাইট এর একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হল, এখানে অনেক ছোট ছোট কাজের ওপরেও গিগ তৈরি করা যায়। ফলে, যেকেউ কোন একটি বিষয়ের ওপর দক্ষ হয়ে থাকলে, শুধু মাত্র সেই বিষয়টির ওপরেই সার্ভিস সেল করতে পারে।

Upwork

অনলাইনে কাজ করে আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হল আপওয়ার্ক। জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং সাইট গুলোর মধ্যে UpWork খুবই জনপ্রিয় একটি সাইট। বিশেষ করে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য এটি একটি সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইট।

অর্থাৎ, আপনি যদি একজন Freelancer হয়ে থাকেন, তাহলে Upwork হল আপনার জন্য একটি উপযুক্ত ফ্রিল্যান্স ওয়েবসাইট বা অনলাইন ইনকাম সাইট।

অনলাইনে যেসব কাজ পাওয়া যায় তার প্রায় সব ধরনের কাজই রয়েছে এই ফ্রিল্যান্সিং সাইটে। এখানে আপনার দক্ষতা অনুযায়ী বিভিন্ন ক্লাইন্ট বা প্রতিষ্ঠানের জন্য বিভিন্ন ধরনের কাজ করে দেয়ার মাধ্যমে বেশ ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন।

UpWork এ সাধারনত দুই ভাবে কাজ করা হয়ে থাকে,  একটি হল ঘণ্টা চুক্তি (Hourly Basis), এবং অন্যটি হল প্রোজেক্ট ভিত্তিক (Project Basis)। অর্থাৎ, এখানে আপনি আপনার কাজের অভিজ্ঞতা অনুসারে কি পরিমাণ কাজ করবেন এবং আপনার কাজের রেট কেমন হবে, তা এই মার্কেটপ্লেসে নিজেই পছন্দ মত ঠিক করে নিতে পারবেন।

Freelancer.com

ফ্রিল্যান্স কাজের জন্য বিশ্বের আরেকটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হল Freelancer.com। যেকোনো ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য এটি খুবই পরিচিত একটি প্লাটফর্ম। বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বের অসংখ্য ফ্রিলান্সাররা এই ওয়েবসাইটে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে থাকেন।

এখানে বিভিন্ন ক্যাটেগরির অনলাইন কাজ পাওয়া যায়। ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট থেকে শুরু করে, গ্রাফিক ডিজাইন, আর্টিকেল রাইটিং, ভিডিও এডিটিং সহ ডাটা এন্ট্রি টাইপের কাজও  পাওয়া যায়।

এখানে কাজ করতে হলে বা কাজের অর্ডার পেতে হলে অবশ্যই কোন বিষয়ের ওপর ভালোভাবে দক্ষতা অর্জন করে নিতে হবে। অর্থাৎ, আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং করতে আগ্রহী হয়ে থাকেন কিংবা আপনার যদি কোন কাজের দক্ষতা থাকে, তাহলে এই মার্কেটপ্লেসে চাইলে আপনার সেই দক্ষতাকে একটি সার্ভিস হিসেবে বিক্রি করতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ

Creative Market

অনলাইন থেকে আয় করার জন্য Creative Market ও জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। মূলত এটি একটি ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রির ওয়েবসাইট।

যেখানে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল পণ্য যেমন, ওয়েবসাইট এর থিম, টেমপ্লেট, বিভিন্ন ধরনের গ্রাফিক্স, ফটো বা ছবি, ফটোশপ প্রি-সেট, সহ অনেক ধরনের পণ্য পাওয়া যায় এই মার্কেটে।

বিশ্বের বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিরা তাদের বিজনেস এর জন্য এখান থেকে অনেক প্রিমিয়াম সব ডিজিটাল পণ্য কিনে থাকে। এখানে যেকেউ চাইলে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে তারপর নিজের তৈরি করা কোন ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রি করেও আয় করতে পারে।

অর্থাৎ, আপনি যদি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হয়ে থাকেন কিংবা বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল টেম্পলেট তৈরি করতে পারেন, তাহলে এই মার্কেটপ্লেসে আপনার নিজের তৈরি করা সেইসব প্রোডাক্ট বিক্রি করে দেয়ার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

এখানে যতবারই আপনার সেই তৈরি করা পণ্য বা প্রোডাক্ট বিক্রি হবে, এই ওয়েবসাইট থেকে ততবারই নির্দিষ্ট একটি কমিশন বা Percentage পেতে থাকবেন।

Data Entry শিখে যারা অনলাইনে টাকা আয় করতে ইচ্ছুক, তাদের জন্য টেন মিনিট স্কুল নিয়ে এসেছে- Data Entry দিয়ে Freelancing কোর্স। ডাটা এন্ট্রি দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে এখনই ভর্তি হয়ে নিন এই কোর্সটিতে।

Themeforest

যেকোনো ধরনের ডিজিটাল প্রোডাক্ট ক্রয় এবং বিক্রয় করার সব চেয়ে বড় অনলাইন মার্কেটপ্লেস হল Themeforest । এখানে বিভিন্ন ক্যাটেগরির ডিজিটাল প্রোডাক্ট যেমন, ওয়েবসাইট থিম, টেম্পলেট, প্লাগিন, অডিও, ভিডিও, গ্রাফিকস সহ অনেক ধরনের প্রোডাক্ট এখানে বিক্রি হয়ে থাকে।

তাছাড়া, এখানে একটি ওয়েবসাইট এর জন্য যে যে সফটওয়্যার এর প্রয়োজন পড়ে তার প্রায় সব ধরনেরই সফটওয়্যার বা প্রোডাক্ট কিনতে পাওয়া যায়।

আপনি চাইলে এখানে নিজের তৈরি করা যেকোনো ধরনের ডিজিটাল প্রোডাক্ট, যেমন- WordPress Themes, WordPress Plugins, Website Templates, Graphics, Video Clips ইত্যাদি এখানে বিক্রি করে দিতে পারেন।

পাশাপাশি আপনি যদি কোন ধরনের পণ্য বা ডিজিটাল প্রোডাক্ট তৈরি করতে নাও পারেন, সেক্ষেত্রে এই মার্কেটপ্লেস এর অ্যাফিলিয়েট পার্টনার হিসেবে যুক্ত হয়ে এখানকার বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট যেমন- থিম, টেম্পলেট, গ্রাফিক্স, এপস ইত্যাদি আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে Promote করে নির্দিষ্ট একটি কমিশন পেতে পারেন।

অর্থাৎ, যখনই আপনার ওয়েবসাইট বা অ্যাফিলিয়েট লিংক ভিজিট করে কেউ কোন প্রোডাক্ট কিনবে, তখনই আপনি এই ওয়েবসাইট থেকে কমিশন পাবেন।

Shutterstock

আরেকটি জনপ্রিয় অনলাইন ইনকাম সাইট হল Shutterstock। এটি বিশ্বের অনেক জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস যেখানে বিভিন্ন ধরনের Stock Photo, Vectors, Illustration, Video Footage, এবং Music Track পাওয়া যায়।  

সারাবিশ্বে বিভিন্ন ধরনের ব্যক্তিগত বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তাদের প্রোজেক্ট বা ব্যবসার কাজে এই মার্কেটপ্লেস থেকে বেশ ভালো দামে বিভিন্ন ধরনের স্টক ফটো (Stock Photos) বা ভিডিও ফুটেজ কিনে থাকে।

যারা ফটোগ্রাফি বা ভিডিওগ্রাফি করতে ভালবাসে এবং এই বিষয়ে যাদের ভালো দক্ষতা আছে, তাদের জন্য এটি খুবই জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম। এখানে যেকেউ চাইলে নিজের তৈরি করা ছবি বা ভিডিও ফুটেজ বিক্রি করে দেয়ার মাধ্যমে আয় করতে পারে।

অর্থাৎ, আপনি যদি একজন ফটোগ্রাফার বা ভিডিওগ্রাফার হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার তৈরি করা সেই ভিডিও ফুটেজ বা ছবি এখানে Contributor হিসেবে যুক্ত হয়ে বিক্রি করতে পারবেন বেশ ভালো দামে।

Facebook

বর্তমানে ফেসবুক থেকে আয় করার ব্যাপারটির সাথে মোটামুটি অনেকেই পরিচিত। ফেসবুক থেকেও বেশ কয়েকটি উপায়ে খুব সহজেই টাকা আয় করা যায়।

সারাবিশ্বে লাখ লাখ প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসার কাজে ফেসবুককে ব্যবহার করে থাকে, যেমন Marketing, Customer Targeting, Brand Awareness, Product Promotion ইত্যাদি কাজের জন্য।

বর্তমানে ফেসবুকের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি বা ইকমারস বিজনেস তৈরি করার বিষয়টিও ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। চাইলে আপনিও ফেসবুককে ব্যবহার করে নিজের একটি বিজনেস শুরু করতে পারেন।

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ধরনের পণ্য বা সেবা বিক্রি করতে পারেন। চাইলে ফেসবুক এর মাধ্যমে পেইড প্রোমোশন করে অধিক গ্রাহক দের কাছে আপনার সেবা বা পণ্য সম্পর্কে প্রচারনা চালাতে পারবেন। এতে করে আপনার বিজনেস এর আয় অনেক গুন বেড়ে যাবে।

এছাড়াও, ফেসবুক থেকে আয় করার আরও বেশ কয়েকটি উপায় আছে, যেমন ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে, গ্রুপ তৈরি করে বা Subscription Based Group খোলার মাধ্যমে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে, একজন সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার (Influencer) হিসেবে ইত্যাদি।

YouTube- ইউটিউব

বর্তমানে অনলাইনে আয় করার সব থেকে সেরা এবং বিশ্বস্ত প্লাটফর্মটি হল YouTube। ইউটিউব এর মাধ্যমে যেকেউ চাইলে বিভিন্ন উপায়ে আয় রোজগার করতে পারে।

ইউটিউব থেকে বাংলাদেশসহ পুরো বিশ্বে লাখো ইউটিউবাররা প্রতি মাসে হাজার ডলারেরও বেশি আয় করে থাকে।

এখানে আপনি চাইলে যেকোনো বিষয়ের ওপর ভিডিও তৈরি করে তা চ্যানেলে প্রকাশ করতে পারবেন। আপনার যে বিষয়ে ভাল ধারণা আছে, বা যে বিষয় আপনার কাছে ভালো লাগে, সেই বিষয় এর ওপরই ভিডিও তৈরি করে তা চ্যানেলে আপলোড করতে পারেন।

এরপর, চ্যানেলে পর্যাপ্ত ভিউ এবং সাবস্ক্রাইবার হলে, সেই চ্যানেলটিকে চাইলে বিভিন্ন উপায়ে মানিটাইজ করতে পারবেন।

একটি ইউটিউব চ্যানেল কে বিভিন্ন উপায়ে মানেটাইজ করা যায়। যেমন, গুগল অ্যাডসেন্স, স্পন্সরশীপ, পণ্য বা সেবা বিক্রি, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সহ আরও বেশ কিছু উপায় রয়েছে।

ইউটিউবে কাজ করার জন্য আপনাকে প্রথমে একটি ইউটিউব চ্যানেলে তৈরি করে নিতে হবে এবং কোন টপিক নিয়ে কাজ করবেন, সেই টপিক বা বিষয় নির্ধারণ করে ভিডিও তৈরির কাজ শুরু করতে পারেন।

সুতরাং, আপনি যদি এমন কোন অনলাইন ইনকাম সাইট খুজে পেতে চান, যেখানে আপনি নিশিন্তে টাকা ইনকাম করতে পারবেন, সেক্ষেত্রে ইউটিউবই হবে আপনার জন্য সব থেকে সেরা একটি প্লাটফর্ম।

Udemy

Udemy হল বিশ্বের অনেক জনপ্রিয় একটি অনলাইন ভিত্তিক কোর্স বা Learning and Teaching মার্কেটপ্লেস। যেকোনো ধরনের অনলাইন কোর্স এর জন্য এটি একটি সেরা প্লাটফর্ম। যেখানে লক্ষ লক্ষ স্টুডেন্ট বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অনলাইন কোর্স করে থাকে। এটিকে অনলাইন কোর্স বিক্রির ওয়েবসাইট বা মার্কেটপ্লেসও বলা হয়।

এখানে যেমন যেকেউ একজন শিক্ষার্থী হিসেবে কোন একটি বিষয়ের ওপর কোর্স কিনে শিখতে পারে, তেমনি এখানে কেউ চাইলে একজন শিক্ষক হিসেবে অনলাইন কোর্স তৈরি করে তা বিক্রি করতে পারে।  

অর্থাৎ আপনি যদি কোন একটি বিষয়ে খুব ভালো এক্সপার্ট হয়ে থাকেন এবং সেটি অন্যদের শেখাতে চান, তাহলে সেই বিষয়ের ওপর একটি অনলাইন কোর্স তৈরি করে এখানে বিক্রি করে দেয়ার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

তবে, যেহেতু এটি একটি অনলাইন ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস (International Marketplace) এবং এর সমস্ত কন্টেন্টই ইংরেজি তে, সুতরাং কোর্স তৈরি করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ইংরেজি ভাষাতেই তৈরি করতে হবে।

পরিশেষে

অনলাইনে আয় করার অনেক গুলো ওয়েবসাইট থাকলেও, উপরিউল্লেখিত যেসব অনলাইন ইনকাম সাইট সম্পর্কে বলা হয়েছে, এগুলো খুবই জনপ্রিয় এবং শতভাগ বিশ্বাসযোগ্য সাইট (Trusted Websites)।

তাই, আপনি যদি কোন স্প্যাম ওয়েবসাইট থেকে দূরে থাকতে চান এবং সম্পূর্ণ বৈধ উপায়ে টাকা ইনকাম করতে চান, তাহলে উপরে দেয়া ওয়েবসাইটগুলোতে কাজ করতে পারেন।

This Post Has One Comment

Leave a Reply